21 Feb 2014

Lost And Found

Abhijit is a member of YRC Nabadisha
My name is Abhijit, and I am 24 years old. My name means 'The Victorious', one who forges ahead with the enthusiasm to win. My home is in Notundeyara-Garia, but most of the time I stay with my aunt in the Gobindopur area of Kolkata. I have a group here, called Nabadisha. Nabadisha is a second home to me, because I am able to interact very freely with its members, they support me a lot and pay heed to all my emotions — my anger and sadness and pain at being hurt by loved ones. We are not related by blood, but definitely share a mental connection.

I feel quite distanced from my own family, because my thought process and theirs have no similarity. From childhood, my father used to live away from us because of work, and between us we have never had an understanding.
But my mother is like a friend — she is the one I hold closest to my heart. It is her that I love most of all; she is the one who encourages me and supports me in everything. Though my parents are close to each other, when my father sometimes behaves in a way that shows violence towards her, I cannot take it at all. I try to make him understand but he doesn’t; he starts behaving badly with me too.

I have an elder brother too. He has made several mistakes in his life — like dropping out of school, not managing our business honestly, and at one point of time when father was very ill, he eloped and got married. Because of this, nobody in our family is really able to accept my sister-in-law, and my father blames my mother for all this. These issues spark off trouble in my family every now and then, and since no one is able to truly forgive the other, no real resolution ever happens. We continue to inhabit the same house like neighbours. I feel suffocated.

From childhood, I’ve had a very outgoing and happy-go-lucky personality, and my dream was to become a great singer. It is this dream that still inspires me to live. I have become so distanced from my family that they actually know nothing about me nowadays — what I hope for, what I dream of, what I wish for them and what is the lack in my life. I continually feel alone, and feel that day by day all my good emotions are getting eroded through friction with bad emotions such as anger and sadness. My family doesn’t even know this, that day by day I am losing myself.

It is for these reasons that I joined my group. In this group, I started attending a number of workshops which helped me bring about transformations in my own self. The Gender workshop is worth mentioning here. I started understanding my strengths and weaknesses; I started knowing myself better as a person. Today my group, in many ways, helps fill the vacuum left by my family, and this has resulted in easing my interactions with my own family members, by lessening the burden of expectations from them. My group has helped me return to my old self — the happier, more hopeful, more open-minded, friendly me.

I am Abhijit, who refuses to be defeated; who knows only how to win. Today I have come to understand the meaning of my name anew, and I will continue to try to live up to its significance.



ফিরে পাওয়া

আমার নাম অভিজিৎ, আমার বয়স ২৪। আমার নামের অর্থ হল বিজিৎ, যে বিজয়লাভ করেছে, যে জেতার মনোভাব ও উচ্ছ্বাস নিয়ে এগিয়ে চলে, যে সবসময়ই জিততে চায়। আমার বাড়ী গড়িয়া, নতুনদেয়াড়া, কিন্তু আমি গোবিন্দপুরে সেজোমাসির বাড়িতেই বেশিরভাগ থাকি। এখানে আমার একটি দল আছে যার নাম নবদিশা। এই দলটি আমার ঘরের মতো, কারণ - দলের সদস্যদের সাথে আমি খুব সহজে মিশতে পারি, তারা আমাকে খুব সমর্থন করে ও আমার রাগ, দুঃখ, অভিমান সব কিছুকেই গুরুত্ব দেয়। দলে কারোর সাথে রক্তের সম্পর্ক না থাকলেও মনের সম্পর্ক অবশ্যই আছে।

আমার নিজের পরিবার থেকে আমার অনেকটা দূরত্ব, কারণ তাদের সাথে আমার চিন্তাধারার কোনও মিল নেই। ছোটোবেলা থেকেই আমার বাবা কাজের জন্যে আমাদের থেকে দূরে থাকতেন তাই বাবা ও আমার মধ্যে বোঝাপড়া নেই বললেই চলে। কিন্তু আমার মা আমার বন্ধুর মত — সব থেকে কাছের। মাকেই সব থেকে বেশি ভালবাসি আমি, মা আমাকে সব কিছুতেই উৎসাহ দেয় এবং সমর্থন করে। বাবা ও মায়ের মধ্যে মিল থাকলেও কিছু কিছু ব্যাপারে বাবা যখন মায়ের সাথে হিংসাত্মক আচরন করে আমি সেটা একদমই সহ্য করতে পারি না। বাবাকে বোঝালেও ঠিক বোঝে না, বরং উল্টে আমার সাথেও খারাপ ব্যবহার করতে থাকে।

আমার একটা দাদাও আছে, দাদা নিজের জীবনে অনেক কিছু ভুল করেছে, যেমন ঠিকমত পড়াশনা করেনি, সৎভাবে ব্যবসা সামলায় নি, আর একসময় বাবা যখন খুব অসুস্থ ছিল, সেই সময় পালিয়ে বিয়ে করে নেয়, তাই আমার বউদিকে কেউ মেনে নিতে পারে না আর এই সব কারণে বাবা একমাত্র মাকেই দোষ দিয়ে থাকে। এইসব ব্যাপার নিয়ে এখনও অনেক ঝামেলা হয় আর কিছুতেই কেউ কাউকে মন থেকে ক্ষমা করতে পারে না বলে এই সমস্যার কিছুতেই সমাধান হয় না। এখন আমরা একই বাড়ীতে প্রতিবেশীদের মতই থাকি। আমার যেন দম বন্ধ হয়ে যায়।

ছোটোবেলা থেকেই আমি খুব মিশুকে ও হাশিখুশি ছিলাম, আর আমার স্বপ্ন ছিল আমি খুব বড় গায়ক হব। এই স্বপ্নই আমাকে বাঁচার প্রেরণা দেয়। কিন্তু নিজের পরিবারের থেকে এতটা দূরে হয়ে গেছি, যে আজ তারা আমার বিষয়ে কিছুই জানে না। আমার কি আশা, আমার কি স্বপ্ন, আমার পরিবারকে আমি কি দিতে চাই এবং আমার জীবনে অভাব কিসের। দিনের পর দিন নিজেকে খুব একা মনে হয়, আর মনে হয় ক্রমাগত রাগ-দুঃখের মত খারাপ অনুভূতিতে ঘষা খেয়ে খেয়ে যেন আমার ভালো অনুভূতিগুলো নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। আমি নিজেকে হারিয়ে ফেলছি সেটাও তারা হয়তো জানে না।

এই কারনে আমি গ্রুপে আশা শুরু করি। গ্রুপে এসে অনেক নতুন কর্মশালার সাথে যুক্ত হয়ে নিজেকে অনেকভাবে পরিবর্তন করতে শুরু করি যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল Gender কর্মশালা। আস্তে আস্তে নিজের দুর্বলতাই বা কি আর ক্ষমতাই বা কি, সে সমন্ধে জানতে বুঝতে পারি ও নিজেকে আরও ভালোভাবে চিনতে শুরু করি। আমার গ্রুপ আজ আমার পরিবারের অভাব অনেকটা মেটায় আর এর জন্য আজ পরিবারের সঙ্গে আমার আদানপ্রদানটা আগের চাইতে সহজ হয়েছে, আমার উপর ওদের চাহিদার বোঝ কিছুটা হালকা হয়েছে।। আমার দল আমাকে আমার হাশিখুশি আশাবাদী মনোভাব ও খোলা বন্ধুত্বপূর্ণ মনে আবার ফিরে যেতে সাহায্য করছে।

আমি অভিজিৎ, যে হার মানে না, শুধু জিততে জানে। আজ নতুন করে আমার নামের অর্থ বুঝছি; আর এই নামের স্বার্থকতা বজায় রাখার চেষ্টা চালিয়ে যাব।
 

1 comment:

  1. You ask me if I red your blog or no? Yes I read it just now. I feel touched. I am sure one day you can find all the happiness in your life and bring smiles to others face. And keep writing and reflects your experiences, thoughts......

    ReplyDelete

You can comment without logging-in, just choose any option from the [Comment as:] list box. Comment in any language - start here